মেইন ম্যেনু

কর্মস্থলেই প্রেমিকাকে বিয়ে পুলিশ কর্মকর্তার!

কাজ নিয়ে ব্যস্ত পুলিশ-প্রেমিক। বিয়ে করার সময়টুকুও নেই। বিয়ের দিন ঠিক করেও পরে তা কাজের চাপের জন্য বাতিল করতে হয়েছে। তবে মনে মনে নিশ্চয়ই কিছুটা হলেও কষ্ট পেয়েছে। বুঝি ভেবেছে, তার ভালোবাসার কি কোন মূল্যই নেই। সত্যিকারের ভালোবাসলে যে সম্পর্কের পরতে পরতে শুধুই চমক অপেক্ষা করে। রেলস্টেশনে দাঁড়িয়ে বাকদত্তা হুয়াং মেংজিয়াওকে বিয়ে করে আরো একবার তা প্রমাণ করে দিলেন চীনের সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর অফিসার ঝ্যাং কিনগুয়া।

গত ২৩ জানুয়ারি বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেন জ্যাং আর হুয়াং। এদিকে আগামী ২৮ জানুয়ারি চীনা নববর্ষ। হঠাৎ ডিউটির চাপ বেড়ে যায় ঝ্যাংয়ের। প্রেমিকার সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করে ২৩ তারিখ বিয়েটা করবে না। মাথা নেড়ে প্রেমিকের সিদ্ধান্তে সায় দিয়েছিলেন হুয়াং। কিন্তু মন যে অন্য কথা বলছিল প্রেমিকার চোখের ভাষায় তা পড়ে ফেলে ঝ্যাং। সেদিন সারারাত তিনি ঠিক করে ঘুমোতে পারেননি। পরদিন বিষয়টি সহকর্মীদের জানালে তারাই পরামর্শটা দেন। এরপর সবটাই গল্পের মতো।

২২ তারিখ হুয়াংঝৌ রেলস্টেশনে দেখা করেন ঝ্যাং আর হুয়াং। একটা লাল জ্যাকেট, ক্যাজুয়াল ট্রাউজার আর মাথায় পনিটেল। প্ল্যাটফর্মে হাজির হুয়াং। নজরে আসে পুলিশের পোশাক পড়ে প্ল্যাটফর্মে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে রয়েছেন ঝ্যাংয়ের সহকর্মীরা। হাতে ফুলের তোড়া আর এক গাল হাসি নিয়ে এগিয়ে আসছেন ঝ্যাং। প্রথমটা হকচকিয়েই গিয়েছিলেন ওই যুবতী। প্রিয়তমার পায়ের কাছে হাঁটু গেড়ে বসলেন ঝ্যাং। এগিয়ে দিলেন ফুলের তোড়াখানা। দু’চোখে তখন সবকিছু ঝাপসা হুয়াংয়ের। গাল ছুঁয়ে জল গড়িয়ে এসেছে ঠোঁটের আশেপাশে। এখনই যে ঝ্যাং তাকে বিয়ে করতে চাইছেন। চশমা সরিয়ে চোখ মুছে সলজ্জ হাসি হুয়াংয়ের। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন।






মন্তব্য চালু নেই