মেইন ম্যেনু

কমতে শুরু করেছে পিঁয়াজের দাম

মূল্য কমে যাওয়ায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পিঁয়াজ আমদানি বেড়ে গেছে। ফলে বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম।

শুক্রবার হিলি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ভারত থেকে আমাদানি করা প্রতি কেজি পিঁয়াজ প্রকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ২৬ টাকা। আর পাটনা জাতের পিঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৭ থেকে ২৮ টাকা কেজি দরে। দেশি পিঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩২ থেকে ৩৫ টাকায়।

হিলি কাস্টমস সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা গেছে, পিঁয়াজের আমদানি মূল্য ৫০৫ ডলার থাকার ফলে হিলি স্থল বন্দর দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ ট্রাক পিঁয়াজ আমদানি হতো। বর্তমানে আমদানি মূল্য কমে ৩০৫ ডলার হওয়ায় হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত রোববার থেকে পিঁয়াজের আমদানি বেড়ে গেছে। শুধুমাত্র বৃহস্পতিবার ভারত থেকে ৩৬ ট্রাক পিঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভারতের বাজারে পিঁয়াজের সরবারাহ বেড়ে যাওয়ায় ও দাম সহনীয় পর্যায়ে আসায় পিঁয়াজের রপ্তানি মূল্য প্রতি টন ৫০৫ মার্কিন ডলার থেকে ৩০৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করে দেশটির মূল্য নির্ধারণ সংস্থা ন্যাশনাল এগ্রিকালচার কো-অপারেটিভ মাকের্টিং ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া (ন্যাফেড)।

এর আগে ভারতের বাজারে পিঁয়াজের সরবরাহ কমে যাওয়া ও মূল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পায়ওয়ার ফলে পিঁয়াজ রপ্তানিকে নিরুৎসাহিত করতে দুই দফায় প্রতি টন ১৫০ মার্কিন ডলার থেকে বাড়িয়ে প্রথমে ৩০০ মার্কিন ডলার পরে আবার বাড়িয়ে ৫০৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করেছিল ন্যাফেড।

হিলি স্থলবন্দরের পাইকারী ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম জানান, পিঁয়াজের আমদানি মূল্য কমায় বৃহস্পতিবার ভারত থেকে আমদানি করা ইন্দো জাতের পিঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে প্রকার ভেদে ২২ থেকে ২৪ টাকা দরে। আর পাটনা জাতের পিঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ২৫ থেকে ২৬ টাকা দরে।

আমদানি মূল্য বেশি থাকায় গত সপ্তাহে ভারত থেকে আমদানি করা ইন্দো জাতের পিঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল প্রতি কেজি ২৬ থেকে ২৭ টাকায়। পাটনা জাতের পিঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ২৭ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি ও রপ্তানিকারক গ্রুপের আহ্বায়ক হারুন উর রশীদ হারুন জানান, ভারত সরকার পিঁয়াজের রপ্তানি মূল্য কমানোর ফলে অনেক আমদানিকারক প্রচুর পরিমানে পিঁয়াজের এলসি (ঋণপত্র) খুলেছেন। এসব পিঁয়াজ আগামী দুই একদিনের মধ্যেই বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে শুরু করবে। তখন পিঁয়াজের বাজার একটু কমতে পারে।

হিলি স্থলবন্দর শুল্ক স্টেশনের সহকারি কমিশনার (এসি) মহিবুর রহমান ভূঞা বলেন, পিঁয়াজের আমদানি পর্যায়ে কোনো ডিউটি আরোপ না থাকায় বর্তমানে আমদানিকারকদের ঘোষণা মূল্য ৩০৫ মার্কিন ডলারে প্রতি টন পিঁয়াজ শুল্কায়ন করা হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই