মেইন ম্যেনু

কপোতাক্ষ নদের সীমানা বিরোধ নিয়ে দু’জেলার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সভা

মোঃ বদরুজ্জামান, বিশেষ প্রতিনিধি, সাতক্ষীরা : খুলনা-সাতক্ষীরা দু’জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত কপোতাক্ষ নদের দীর্ঘদিনের সীমানা বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে খুলনা অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার এর উপস্থিতিতে দু’জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের এক সভা সোমবার দুপুরে খুলনার পাইকগাছা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভা সুত্রে জানা গেছে, দুই জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত কপোতাক্ষ নদ কালের বিবর্তনে নাব্যতা হ্রাসে গতিপথ পরিবর্তন করায় দু’জেলার বাসিন্দাদের মধ্যে চরভরাটিয়া জমি নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। নদ ভাঙ্গনের ফলে এক পাড়ের জমি অন্যপাড়ে চর ভরাটিয়া জমিতে পরিনত হওয়ায় এ জমি বিভিন্ন সময় সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তারা ভুমিহীনসহ বিভিন্ন জনদের মাঝে বন্দোবস্ত প্রদান করেন। এ নিয়ে শুরু হয় দখল পাল্টা দখলের মহড়া, ঘটে হামলা মামলার ঘটনা।

সমস্যা সমাধানে সর্বশেষ সভার প্রধান অতিথি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) অশোক কুমার বিশ্বাস জানান, সীমানা বিরোধ নিয়ে সর্বশেষ ০৯/০৮/২০০৯ সালে দুই জেলার টেক্যনিক্যাল কমিটির সুপারিশে উচ্চ পদস্থ কমিটি উভয় জেলার সীমানা বিরোধ নিষ্পত্তি করেন। কিন্তু খুলনা জেলার পাইকগাছার গদাইপুর ইউপির হিতামপুর গ্রামের মোঃ ছহিল উদ্দীন গাজীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটি দুই জেলার পদস্থ কর্মকর্তাদের নিয়ে সোমবার এ বৈঠক করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খুলনা জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার মনিরুজ্জামান, খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) দীপংকর কুমার বিশ্বাস, সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ তাজুল ইসলাম, তালা উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব হোসেন, পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ কবির উদ্দীন, সহকারী কশিনার (ভুমি) মোঃ কামরুল ইসলাম, তালা সহকারী কমিশনার (ভুমি) তৌহফিকুল ইসলাম, ওসি সিকদার আককাস আলী ও আবু বক্কর সিদ্দীক, ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আব্দুস সালাম বাচ্চু ও লিয়াকত হোসেনসহ উভয় উপজেলার বিরোধ সংশ্লিষ্ঠরা সভায় উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকালে উক্ত কমিটির সদস্যরা কপোতাক্ষ নদের বিরোধীপুর্ণ এলাকা পরিদর্শন করেন।






মন্তব্য চালু নেই