মেইন ম্যেনু

এ ভুলগুলোই কি আপনার অর্থকষ্টের কারণ?

বন্ধুদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলেন
বন্ধুদের সঙ্গে নিয়মিত আড্ডা দেওয়া ও যোগাযোগ রক্ষা করা ভালো। কিন্তু তাদের জীবনযাপনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে চাইলে বিপদের মুখে পড়বেন। এ সময়গুলো উপভোগ্য হতে পারে। কিন্তু পকেটের পয়সার বারোটা বাজবে। আপনাকে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে বলা হচ্ছে না। তবে খরচের বিষয়ে সাবধান হতে হবে। সবার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে যাবেন না।

খরচে আবেগের আধিপত্য
জীবন সুখী ও সমৃদ্ধ করে দিতে পারে ইতিবাচক আবেগ। ‘ভালো আবেগ’ আপনাকে সুখী করে। আবার এই আবেগ কঠিন সময়ও এনে দিতে সক্ষম। বিশেষ করে অর্থ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে যদি ব্যয়ের মানসিকতা আবেগের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়, তাহলেই বিপদ।

সিদ্ধান্তে গড়িমসি
আসলে খরচের বিষয়ে আপনি সচেতন হবেন—এটা একটা বড় সিদ্ধান্ত। দৃঢ়প্রতিজ্ঞ না হতে পারলে কোনো পরিকল্পনাই কাজে দেবে না। ক্রমেই জীবযাপনে খরচ বাড়বে। ধীরে ধীরে ঋণের জালে জড়িয়ে পড়তে থাকবেন। তাই জরুরি ভিত্তিতে ঠিক করুন, আপনি অর্থ ব্যয়ে বাস্তবমুখী হবেন।

যাকে-তাকে ধার
কাছের মানুষ বিপদে পড়লে তাকে ধার দেওয়া যায়। নিজেরও অনেক সময় ধার নিতে হয়। কিন্তু তাই বলে যে ধার চাইবে, তাকেই টাকা দেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ নয়। এতে দেখবেন, মানিব্যাগ ফাঁকা হয়ে গেছে।

জরুরি ফান্ড না থাকা
যত সমস্যাই থাক না কেন, ভবিষ্যতের জন্য জরুরি ফান্ড না থাকার মানে হলো আপনার সর্বনাশ আসন্ন। আয়ের নির্দিষ্ট একটা অংশ সঞ্চয়ের মাধ্যমে জরুরি অবস্থা সামাল দেওয়ার প্রস্তুতি থাকতে হয়।

–চিট শিট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার






মন্তব্য চালু নেই