মেইন ম্যেনু

এরশাদের নতুন চমকে এবার স্পিকারের চাচা!

সাবেক রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মানেই রাজনৈতিক অঙ্গনে নতুন নতুন চমক! এক সময় যাকে বাংলাদেশের লৌহমানব বলা হতো, তিনি আজ রাজনীতির রম্যপুরুষ। তার কথা উঠলেই সবাই মনে করেন এবার নতুন কোন চমক আসবে! হ্যাঁ এবারো তিনি একটি চমক দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ এই দূত গতকাল ‍বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) জাতীয় ইসলামী মহাজোটের ঘোষণা দিয়েছেন।

দেশের ছোট ছোট ৩৪টি ইসলামী দল নিয়ে এ জোটের ঘোষণা এলো। যাদের অধিকাংশেরই নাম মানুষ জানেনা! বৃহস্পতিবার জোটটির আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে ‘আশীর্বাদ’ দিতে জাতীয় প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়েছিলেন এরশাদ।

তবে তার এই চমকের মূল আকর্ষণ হলো জোটের প্রধান মাওলানা আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক। যিনি নিজেকে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর চাচা বলে পরিচয় দিতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। তিনি বলেছেন, ‘শিরীন শারমিন চৌধুরী আমার ভাতিজি।’

এ প্রসঙ্গে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘উনি আমাদের গ্রামের, অনেক দূর সম্পর্কের আত্মীয়। কাছের কেউ নন। আর আমি চিনি মানে, খুব ছোটবেলা উনাকে দেখেছি। আমার আপন চাচাও নন তিনি। উনি রাজনৈতিক জোট করছেন, এটার সঙ্গে আমার কী সম্পর্ক?’

মহাজোটের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে এরশাদ বলেন ‘আমরা কী চাই? স্বাধীনতার চেতনা, ইসলামী মূল্যবোধ এবং বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী সবাইকে নিয়ে একটি জোট করতে। তার নেতৃত্ব যদি আমার হাতে দেন, তাহলে আমি খুশি হব। আশা করি সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমাদের আশা পূর্ণ হবে। আমরা আরেকটি মহাজোট করব।’

এ প্রসঙ্গে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি মোহাম্মদ ফয়জুল্লাহ জানান, ‘যে সকল ইসলামী দলের তৃণমূল পর্যায়ে সাংগঠনিক ভিত্তি ও জনসমর্থন রয়েছে এমন কোনো সংগঠন এরশাদের ডাকে সাড়া দেবে বলে মনে হয় না।’

নতুন জোটের শরিক দল:
নতুন জোটের শরিক দলগুলো হিসেবে যে নামগুলো এসেছে- খেলাফত আন্দোলন বাংলাদেশ, ইনসানিয়াত পার্টি, খেলাফত বাস্তবায়ন পার্টি, গণ ইসলামিক জোট, পিপলস জাস্টিস পার্টি, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ ইসলামিক লিবারেল পার্টি, জাতীয় শরিয়া আন্দোলন, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ, বাংলাদেশ জনতা পার্টি, বাংলাদেশ ইসলামি জনকল্যাণ পার্টি, ইউনাইটেড ইসলামিক লীগ, জমিয়তে মুসলিমিন বাংলাদেশ, ন্যাপ-ভাসানী, খেলাফত সংগ্রাম পরিষদ, বাংলাদেশ মানবাধিকার পার্টি, ইসলামি গণ আন্দোলন, জাতীয় ইসলামি আন্দোলন, জমিয়তুল ওলামা পার্টি, জাতীয় ইসলামিক মুভমেন্ট, ইসলামি আক্বিদা সংরক্ষণ পার্টি, ইসলামী সংরক্ষণ পার্টি, ইসলামি ফ্রন্ট বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইসলামি পার্টি, ইসলামী সমাজ কল্যাণ আন্দোলন, বাংলাদেশ ইত্তেহাদুল মুসলিমিন, বাংলাদেশ খেলাফাতুল উম্মাহ, বাংলাদেশ আক্বিমুদ্দিন মজলিস, সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট পার্টি, জমিয়তুল হেদায়াহ মুভমেন্ট, মুসলিম জনতা পার্টি, ইসলামি আক্বিদা সংরক্ষণ আন্দোলন, খেদমতে খালক পার্টি, ওলামা মাশায়েখ সমন্বয় পরিষদ, ইউনাইটেড ইসলামিক ফ্রন্ট।

নব্বইয়ের গণঅভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত সামরিক শাসক এরশাদ ২০০১ সালের নির্বাচনে ইসলামী ঐক্য ফ্রন্ট গঠন করে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। ২০০৭ সালে বাতিল হওয়া সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটে যোগ দিয়েছিলেন। বিএনপির নির্বাচন বর্জনের মুখে ২০১৪ সালের নির্বাচনে আলাদাভাবে অংশ নিলেও পরে সরকারে যোগ দেয় এরশাদের জাতীয় পার্টি। একই সাথে সংসদে বিরোধী দল হিসেবেও আছেন।






মন্তব্য চালু নেই