মেইন ম্যেনু

এমপি জেবুন্নেছার গাড়ি বহরে ছাত্রলীগের মারামারি

বরিশাল নগরীর নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সদর-৫ আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজের গাড়ি বহরে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। এসময় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে মহানগর ছাত্রলীগের সানজিদ রহমান সজিব নামের এক কর্মী আহত হয়।

সানজিদ রহমান সজিবকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি নগরীর বাংলাবাজার এলাকার আর্শেদ আলী কন্ট্রাকটার গলির বাসিন্দা ও পুলিশ সদস্য আনসার উদ্দিনের ছেলে।

সজিব জানায়, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও এমপি প্রয়াত শওকত হোসেন হিরন এর সহধর্মীনি সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ দীর্ঘ দিন পরে মঙ্গলবার রাত ১১ টায় সড়ক পথে বরিশালে আসেন। এজন্য বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তাকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গরিয়ার পাড় থেকে গ্রহন করে নগরীর বাস ভবনে নিয়ে আসছিলেন।

তিনি বলেন, পথে নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকায় পৌছলে এমপি’র গাড়ির পেছনে মোটর সাইকেল বহরে থাকা নগর ছাত্রলীগের তথা কথিত সহ-সভাপতি রিয়াজ ভুইয়ার মোটর সাইকের সাথে সজিবের মোটর সাইকেলে হালকা ধাক্কা লাগে।

সজিব বলে, এ নিয়ে রিয়াজ ভূইয়া এবং তার সহযোগী ছাত্রলীগের তথা কথিত সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাসের সাথে সজিবের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় রিয়াজ ভূইয়া মোটর সাইকেলের বহর থামিয়ে সজিবের উপর হামলা চালায়। এক পর্যায় তাদের মাঝে হাতাহাতি হয়। তখন রিয়াজ ভুইয়ার নেতৃত্বে পূণরায় প্রদীপ দাস সহ ১৫/২০ জন মিলে সজিবকে বেধড়ক মারধর এবং কলম দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বহরে থাকা ছাত্রলীগ এবং যুবলীগের অন্যান্য নেতা-কর্মীরা পরিস্থিতি শান্ত করে।

অভিযোগের বিষয়ে প্রদীপ দাস বলেন, এমপি’র গাড়ি বহরে সজিব বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করে। সিনিয়ররা বহরের সামনে যেতে চাইলেও তাদের আগে উঠতে দেয়নি। এসময় তাকে মন্দ বললে সজিব সিনিয়রদের সাথে বেয়াদবী করে। এজন্য বহরে থাকা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তাকে গনধোলাই দেয়।






মন্তব্য চালু নেই