মেইন ম্যেনু

এগিয়ে থেকেই দিন শেষ করলো বাংলাদেশ

আগের দিনও বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল দুপুরের পর বৃষ্টি হবে। আকাশে মেঘ আর কনকনে ঠাণ্ডায় শরীর জমে গেলেও বৃষ্টি আসেনি। আজও আবহাওয়ার রিপোর্টে দুপুরের পর বৃষ্টি হতে পারে বলা আছে। এবার সত্যি সত্যি বৃষ্টি চলে আসল। স্থানীয় সময় বিকেল ৫ টা ৪০ মিনিটে ঝির ঝিরে বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে গেল। আম্পায়াররা বেলস তুলে ফিরে গেলেন নিজের কক্ষে। আর টাইগার ফিল্ডার এবং দুই কিউই ব্যাটসম্যান হেনরি নিকোলস ও সাউদি সাজঘরে।

আর মুহূর্তের মধ্যে মাঠ কর্মীরা পিচের আশপাশ কভারে ঢেকেও ফেললেন। তারপরও আকাশের যা অবস্থা তাতে আজ আর খেলা হবে কিনা সন্দেহ ছিল। কারণ আলো কমে গেছে। সে সংশয় সত্য। এই মাত্র ঘোষণা আসল আজকের দিনের খেলা শেষ। আগামীকাল রোববার তৃতীয় দিনের খেলা শুরু হবে নির্ধারিত সময়ের ২৩ মিনিট আগে সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে।

এদিকে বোলিংয়ে ফিরেই নিজের ঝলক দেখালেন সাকিব। নয় বলের মধ্যে সাজঘরে ফেরালেন কিউইদের তিন ব্যাটসম্যানকে। তবে এরপরই শুরু হয় বৃষ্টি। আর এতেই দিন শেষে ২৯ রানে এগিয়ে থেকে দিন শেষ করলো বাংলাদেশ। এর আগে লাথাম ও টেলরের বিদায়ের পর টাইগারদের সামনে সুযোগ ছিল খেলায় ফেরার। তবে সান্টনারকে সঙ্গে নিয়ে সেই ধাক্কা সামাল দেন নিকোলস। অবশেষে এই দুই জনের ৭৫ রানের সেই জুটি ভাঙেন সাকিব। এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে সান্টনারকে (২৯) সাজঘরে ফেরান টাইগার এই অলরাউন্ডার। এরপর দ্রুত ওয়াটলিং (১) ও গ্র্যান্ডহোমকে (০) বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান সাকিব। ফলে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬০ রান।

এদিকে কামরুল ইসলাম রাব্বির করা ইনিংসের ১৫তম ওভারে জোড়া আঘাত হেনে নিউজিল্যান্ডকে দারুণভাবে চেপে ধরেছিল বাংলাদেশ। তবে তৃতীয় উইকেট জুটিতে সে চাপ সামলে টাইগারদের চোখ রাঙাচ্ছিলেন টম লাথাম ও রস টেলর। তবে লাথামকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন তাসকিন আহমেদ।

তাসকিনের খাটো লেন্থের বল আড়াআড়ি খেলতে চেয়েছিলেন লাথাম। বলে ব্যাটে ঠিকভাবে সংযোগ না হওয়ায় ব্যাটের কানা ছুঁয়ে চলে যায় উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানের হাতে। তবে আউট হওয়ার আগে কার্যকরী ৬৮ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ১১১ বলে ১১টি চারের সাহায্যে এ রান করেছেন তিনি। লাথামের পর খুব বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারেননি কিউই ব্যাটসম্যান রস টেলর। মিরাজের বলে ব্যক্তিগত ৭৭ রান করে তাইজুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান কিউই এই ব্যাটসম্যান।

শনিবার সকালে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করতে নামে নিউজিল্যান্ড। দুই ওপেনারের দারুণ ব্যাটিংয়ে ৪৫ রানের ওপেনিং জুটি পায় তারা। এরপর স্বাগতিক শিবিরে জোড়া আঘাত হানেন রাব্বি। একই ওভারে ফিরিয়ে দেন ওপেনার তিন রাভাল ও অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে।

ইনিংসের ১৫তম ওভারে বল হাতে নেন রাব্বির। দ্বিতীয় বলেই রাভালকে ফেরান তিনি। রাব্বির করা খাটো লেন্থের বলটি পুল করতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হয়ে যান রাভাল।

এরপর এক বল পড়ে কিউই শিবিরে বড় আঘাত হানেন রাব্বি। দলের সেরা ব্যাটসম্যান অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানের তালুবন্দি করেন তিনি।

তবে এদিন শুরুতেই কিউইদের চাপে ফেলতে পারতো বাংলাদেশ। ইনিংসের চতুর্থ ওভারেই রাভালের ক্যাচ মিস করেন মাহমুদউল্লাহ। মেহেদী হাসান মিরাজের বলে দ্বিতীয় স্লিপে সহজ ক্যাচ ছেড়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

এরপর ১১তম ওভারে তাসকিনের বলে একই জায়গায় আবার জীবন পান রাভাল। তবে এবার ছেড়েছেন দেশসেরা ফিল্ডার সাব্বির রহমান। আর টাইগারদের ক্যাচ মিসের মহড়ার ফলে ভালো সূচনা পেয়ে যায় নিউজিল্যান্ড।






মন্তব্য চালু নেই