মেইন ম্যেনু

এই পাঁচ কারণে সৌদি আরবে আটকে ৫০ লাখ বিয়ে

কট্টর ইসলামী অনুশাসন অনুসরণের কারণে সৌদি আরবে প্রায় অর্ধকোটি নারী পুরুষ বিয়ে করতে পারছেন না এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সৌদিভিত্তিক দৈনিক আল-ওয়াতান।

সম্প্রতি প্রকাশিত এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, বিয়ের বয়স পেরিয়ে গেলেও দেশটিতে অবিবাহিত রয়ে গেছেন ৫২ লাখ ২৬ হাজারের বেশি নারী-পুরুষ। যার মধ্যে প্রায় ৩০ লাখ পুরুষ, নারী ২২ লাখ।

সৌদি আরবের সাধারণ পরিসংখ্যান কর্তৃপক্ষের সর্বশেষ জনসমীক্ষায় এ তথ্য উঠে এসেছে। বর্তমানে সৌদি আরবের মোট জনসংখ্যা তিন কোটি আট লাখের বেশি।

সমীক্ষায় বলা হয়েছে, পুরুষের ক্ষেত্রে ৩৯ বছর নয় মাস ও নারীদের ক্ষেত্রে ৩৬ বছর ৪ মাস পেরিয়ে গেলেই সাধারণত আর বিয়ের জন্য আর অবিবাহিত পাত্র/পাত্রী খুঁজে পাওয়া যায় না।

এক্ষেত্রে দেখা যায়, অবিবাহিত পুরুষদের বিধবা অথবা তালাক প্রাপ্তা নারী বেছে নিতে হয় । অপরদিকে বিয়ের বয়স পেরিয়ে যাওয়া নারীদের দ্বিতীয় বা তৃতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে হয়ে থাকে।

সমীক্ষায় আরো বলা হয়েছে, পারিবারিক ও গোষ্ঠীর বাইরে বিবাহ না দেওয়ার পূর্ববর্তী রেওয়াজ, সামাজিকভাবে ছেলেদের প্রতিষ্ঠিত না হওয়া, বেকারত্ব , উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ গমন, মাদকাসক্তির কারণে রক্তের পরীক্ষা দিতে অনীহা ইত্যাদি কারণে দেশটিতে অবিবাহিত নারী-পুরুষের সংখ্যা বাড়ছে। উল্লেখ্য, সৌদি আরবে বিবাহের জন্য রক্ত পরীক্ষা বাধ্যতামূলক । সর্বোপরি ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী দেনমোহর পরিশোধের বাধ্যবাধকতার কারনে সৌদি ছেলেরা সময়মত বিয়ে করতে পারছে না। অপর দিকে মেয়ে পক্ষের সামাজিক ও ধর্মীয় রীতিনীতিতে ছাড় না দেওয়ার মানসিকতা মেয়েদের বিয়ে না হওয়ার কারণ বলে অনেকে মনে করেন ।






মন্তব্য চালু নেই