মেইন ম্যেনু

ইস্ট ওয়েস্টে আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

ছাত্র বহিষ্কারের প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনিয়মের প্রতিবাদ করায় গত ২৪ জুলাই তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করে কর্তৃপক্ষ। এই বহিষ্কারাদেশ বাতিলের দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

বহিষ্কৃতরা হলেন, ত্বরিৎ প্রকৌশল বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ জাকারিয়া, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী কাজী মো. মাহবুবুল হক তমাল, ব্যবসা প্রশাসনের ৫ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী তানভির আহমেদ সিদ্দিকী। ইস্ট ওয়েস্টে আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

এদের বহিষ্কারাদেশ বাতিলের দাবিতে বুধবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা অবিলম্বে তিন শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ বাতিলের দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর আন্দোলন করার হুঁশিয়ারি দেন তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় নানা অনিয়মে জড়িত। বিশ্ববিদ্যালয়ের এসি নষ্ট ছিল। ৯ ও ১০ তলায় শিক্ষার্থীদের সিঁড়ি বেয়ে উঠতে হয়। লিফ্ট বন্ধ ছিল। এছাড়া এতো বড় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টাডি রুম নেই। এই ধরনের নানা সমস্যায় জর্জরিত ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়। এসব সমস্যার জন্য গত মে মাসে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে। তথন আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ায় ঐ তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।’

ঐ শিক্ষার্থী জানান, ‘বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ঈদের ঠিক আগে তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করেছে, যাতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করতে না পারে। তাই ঈদের পরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে খুলেছে। শিক্ষার্থীরাও স্বত্ব:স্ফূর্ত আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই