মেইন ম্যেনু

ইসি গঠন: সার্চ কমিটির চিঠি এখনও পায়নি আ.লীগ-বিএনপি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের জন্য প্রস্তাব প্রেরণ সম্পর্কে সার্চ কমিটির চিঠি এখনও পায়নি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি। রোববার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ ও বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মো. মনির হোসেন এ তথ্য জানান।খবর জাগো নিউজের।

আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, ‘মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কোনো চিঠি এখনও আমরা পাইনি।’

বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মনির হোসেন বলেন, ‘মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে যে চিঠি পাঠানো হচ্ছে তা এখনও বিএনপির দফতরে এসে পৌঁছায়নি।’

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতি কর্তৃক গঠিত ‘সার্চ কমিটি’র প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় শনিবার। প্রথম বৈঠকে নির্বাচন কমিশন গঠনে দেশের ১২ বিশিষ্ট নাগরিকের কাছ থেকে পরামর্শ নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সার্চ কমিটি।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেয়া ৩১টি রাজনৈতিক দলের কাছ থেকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনার মিলিয়ে পাঁচ সদস্যের নাম আহ্বান করা হয় বৈঠক থেকে।

সার্চ কমিটির বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছিলেন।

সার্চ কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৩১ জানুয়ারি মঙ্গলবার বেলা ২টার মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. নাজমুল হুদা সিদ্দিকী রাজনৈতিক দলগুলোকে নাম পাঠানোর জন্য চিঠি পাঠাচ্ছেন বলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সূত্রে জানা যায়।

এদিকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) জানিয়েছে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. নাজমুল হুদা সিদ্দিকীর চিঠি তারা পেয়েছে। তবে দলটির পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনারদের কোনো নাম প্রস্তাব করা হবে না বলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে সোমবার সুপ্রিম কোর্ট জাজেস লাউঞ্জে দ্বিতীয় দফা বৈঠকে বসছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি।

গত বুধবার রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের সার্চ কমিটি (অনুসন্ধান কমিটি) গঠন করেন। পরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

সার্চ কমিটির কার্যক্রমে সাচিবিক সহায়তার পাশাপাশি বৈঠক সমন্বয়ের কাজ করছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সার্চ কমিটি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এবং নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মনোনয়নে এ কমিটি ১০ জনের একটি তালিকা আগামী ১০ কার্যদিবসের মধ্যে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের হাতে দেবে।

সে অনুযায়ী আগামী ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সিইসি এবং ইসি নিয়োগ সংক্রান্ত নামের তালিকা রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরবে সার্চ কমিটি।

কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ ৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই