মেইন ম্যেনু

ইবাদত-বন্দেগীতে ব্যস্ত বাংলাদেশি হাজীরা

বাংলাদেশ থেকে হজ করতে আসা হাজীরা জামায়াতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ, ইবাদত-বন্দেগীর পাশাপাশি মসজিদে নববীতে অবস্থিত মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত এবং ব্যক্তিগত নফল ইবাদতের মাধ্যমেই পার করছেন তাদের মূল্যবান সময় ।

এদিকে, সৌদি আরবে জেদ্দার কিং আব্দুল আজিজ বিমানবন্দরে বুধবার স্থানীয় সময় সকাল সোয়া ১১টায় বাংলাদেশ থেকে ছেড়ে আসা ৪০৯ হজযাত্রী নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইট অবতরণ করে। এর পরে বুধবার বিভিন্ন সময়ে আরো চারটা ফ্লাইট হজ যাত্রীদের নিয়ে ঢাকা থেকে এসে জেদ্দা অবতরণ করে।

প্রথম ফ্লাইটের হজ যাত্রীদের বরণ করে নিতে সে সময় জেদ্দা বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ শহীদুল ইসলাম, জেদ্দা কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল একেএম শহিদুল করিম, ডিফেন্স অ্যাটাশে ফারকুল ইসলাম, কনসাল (হজ) মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানসহ দূতাবাস এবং কনস্যুলেটের কর্মকর্তারা সহ সৌদি সরকারের ডেপুটি মিনিস্টার (হজ) আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ মারগানি, মহাপরিচালক হজ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বারাউই, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া বিষয়ক হজ কমিটির চেয়ারম্যান রাফাত ইসমাইল বদর, সৌদি ট্রান্সপোর্ট অথরিটির পরিচালক খালেদ মোকতারসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। ফ্লাইটের ৪১৯জন বাংলাদেশি হজযাত্রীকে সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে জায়নামাজ, তসবিহ এবং আতর উপহার দেয়া হয়।

বাংলাদেশ থেকে হজ করতে আসা কিছু হাজিদের সাথে আলাপকালে তারা সকল দেশের সকল মোসলমানদের জন্য এবং এবারে হাজীদের জন্য বাংলাদেশের সকল মোসলমানের কাছে দোয়া চান। এখানকার পরিবেশ পরিস্থিতি আগের চাইতেও অনেকটা আরামদায়ক স্বীকার করে এখানকার সরকার এবং হজ পরিচালকদের ধন্যবাদ জানান আছাদুজামান নামে এক হজ যাত্রী। যিনি ১৫ বছর আগে সৌদিতে ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই