মেইন ম্যেনু

আমরা যা করি বিএনপি সেটারই বিরোধিতা করে : তোফায়েল

নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য সার্চ কমিটি গঠন বিষয়ে বিএনপির প্রতিক্রিয়া নিয়ে কথা বলেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘আমরা যা করি বিএনপি সেটারই বিরোধিতা করে। তারা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের পর সন্তোষ প্রকাশ করেছিল। রাষ্ট্রপতি সব দলের সঙ্গে আলোচনার করেই সার্চ কমিটি গঠন করেছেন। তার বিরোধিতা করা উচিত হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সার্চ কমিটি যাদের নাম প্রস্তাব করবে তাদের মধ্য থেকেই প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে এবং সেই কশিনের অধীনের নির্বাচন হবে। ওই নির্বাচনে তো বিএনপিও অংশ নেবে। তাই বিরোধিতা করা কি ঠিক হয়েছে? এই বিতর্ক তৈরি করে বিএনপি নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হবে, দেশও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

জাপানের রাষ্টদূত মাসাতো ওয়াতানাবে’র সঙ্গে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাক্ষাতের পর তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, ‘২০১৯ সালে নির্বাচন হবেই। কাজেই এভাবে তড়িৎ গতিতে মন্তব্য করা বিএনপির ঠিক হয়নি।’

উল্লেখ্য নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে সার্চ কমিটির সদস্যদের নাম শুনে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপি। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সার্চ কমিটিতে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে, তারা সবাই আওয়ামী লীগের পছন্দের লোক। এতে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটেনি।
তিনি আরও বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি আলোচনা শুরুর পরে বিএনপি আশার আলো দেখেছিল। কিন্তু সেই আশা হতাশায় পরিণত হয়েছে। চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। যে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে, তা আওয়ামী লীগ সরকারের পছন্দের কমিটি।’ এই কমিটির মাধ্যমে আওয়ামী লীগ আবারও ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন করতে চায় বলেও মনে করেন তিনি।

এদিকে বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘হলি আর্টিজানের ঘটনার পর বাংলাদেশ সরকার এদেশে অবস্থানরত সব জাপানি নাগরিকের নিরাপত্তার বিষয়ে যে সহায়তা করেছে তাতে আমরা সন্তুষ্ট।’

বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, বর্তমানে ২৪০টি জাপানি কোম্পানি বাংলাদেশে কাজ করে। জাপান ও বাংলাদেশের দিপক্ষীয় বাণিজ্য এখন প্রায় ২.৫ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশের ইপিজিডে জাপানি ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই