মেইন ম্যেনু

নূর হোসেনের বাড়ি তল্লাশি

আটক ১৬ জন ঢাকার সিআইডি কার্যালয়ে, রক্তমাখা গাড়ি উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামসহ ৫ জন অপহরণের মামলায় ১৬ জনকে আটক করে ঢাকায় আনা হয়েছে।
শনিবার দুপুরে তাদের ঢাকায় নিয়ে আসে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ফরেনসিক দল। সিআইডি কার্যালয়ে আটককৃতদের গণমাধ্যমের মুখোমুখি করা হবে।
এর আগে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অপহরণ মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনের বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয়েছে রক্তমাখা কালো রঙের হাইএস (ঢাকা মেট্রো-চ ১৫০৫১০) গাড়ি। এসময় চন্দন সরকারের মোবাইলসহ আটক করা হয় ১৬ জনকে। এদের মধ্যে রয়েছে নূর হোসেনের বডিগার্ড, বাড়ির দারোয়ান ও কাজের লোক।
অপরদিকে, বেলা সাড়ে ১২টায় ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম উদ্ধারের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে ২ জন আটকসহ মোবাইল ও মাইক্রোবাস উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত ডিআইটি খন্দকার গোলাম ফারুক।
ওই সময় তিনি বলেন, একটি শার্ট উদ্ধার করা হয়েছে যার মধ্যে অনেক দাগ রয়েছে। সেটা আসলে রক্তের দাগ কিনা পরীক্ষা করে দেখা হবে। এছাড়াও নূর হোসেন পার্সপোর্ট খতিয়ে দেখা হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।
নারায়ণগঞ্জের সুষ্ঠু পরিবেশে ফিরিয়ে আনার জন্য তাদের কিছু সময় দেয়ার জন্য আহ্বান জানান তিনি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড় টেকপাড়া এলাকায় অবস্থিত নূর হোসেনের বাড়ির চারপাশ সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ঘেরাও করে রাখে পুলিশ। পরে বেলা ১১টায় নূর হোসেনের বাড়িতে তল্লাশি শুরু করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা। ৪ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে বিকেল ৩ টায় শেষ হয়। অভিযান চলাকালে গণমাধ্যমের কোন কর্মীকে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।।
নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(অপরাধ) শহিদুল ইসলাম অভিযানের সত্যতা স্বীকার করেছেন।
নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া(হেড কোয়াটার) আটকের সত্যতা স্বীকার করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই