মেইন ম্যেনু

আগারগাঁওয়ে নিজ বাসার সামনে আওয়ামী লীগ নেতা খুন

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নিজ বাসার সামনে আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গির কবিরকে (৪৫) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। মাদক ব্যবসার নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত জাহাঙ্গির কবির আওয়ামী লীগের ২৮ নং ওয়ার্ড (পুরাতন ৪১ নং ওয়ার্ড) সভাপতি প্রার্থী ছিলেন। এছাড়া তিনি স্থানীয় মমতা বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি। তিনি ৪১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি নূর মোহাম্মদের মেয়ের জামাই। তিনি নেত্রকোনার আটপাড়ার সুনই গ্রামের মো. মোস্তফার ছেলে। তার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

নিহতের স্ত্রী পারভিন আক্তার জানান, রাত সাড়ে ১১টায় জাহাঙ্গির কবির (৪৫) প্রাইভেটকারযোগে ২০৪, পশ্চিম আগারগাঁওয়ের বাসার সামনে এসে পৌঁছান। গাড়ি থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে পূর্ব থেকে ওঁৎপেতে থাকা দুই যুবক জাহাঙ্গিরকে লক্ষ্য করে কয়েকটি গুলি করে। গুলি তার নাক, মুখ ও বুকসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে বিদ্ধ হয়। গুলির শব্দ শুনে স্বজন ও প্রতিবেশিরা এগিয়ে গেলে দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলযোগে দ্রুত পালিয়ে যায়।

পরে তারা জাহাঙ্গিরকে দ্রুত উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় পঙ্গু হাসপাতালে নেয়ার পর রাত ১২টার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শেরেবাংলা নগর থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা শামসুল আলম বলেন, আগারগাঁওয়ের দুর্বৃত্তদের গুলিতে জাহাঙ্গির নিহত হন। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। নিহত জাহাঙ্গীর আলম বিএনপি বস্তির মাদক ব্যবসায়ী নূরু হাজির জামাতা। তিনি পশ্চিম আগারগাঁও কাঁচাবাজার কমিটির সভাপতি। এ ছাড়া ২৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের (সাবেক ৪১ নম্বর ওয়ার্ড) নেতা। ওই ওয়ার্ডে কোনো কমিটি নেই। সম্ভাব্য কমিটির সভাপতি প্রার্থী ছিলেন তিনি।

পুলিশের তেজগাঁও অঞ্চলের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, মাদক ব্যবসা নিয়ে বিরোধে জাহাঙ্গীর খুন হয়েছেন। যে এলাকায় খুনের ঘটনা ঘটেছে, সেটি মাদকপ্রবণ এলাকা। নিহত ব্যবসায়ীর শ্বশুরও মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই