মেইন ম্যেনু

আকরাম খানকে হুমকি!

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রভাবশালী পরিচালক হয়েও নিজ জন্মস্থান চট্টগ্রামে ‘না আসার জন্য হুমকি পাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান। রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম ক্লাবের পার্টি সেন্টারে বিসিবি আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।
আকরাম খান বলেন, ‘চট্টগ্রামে না আসার জন্য আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দেয়া হচ্ছে। আমার আত্মীয় স্বজনকে উড়ো চিঠি দিয়ে, ফোন করে, মেইল করে বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে বলা হচ্ছে আমি যেন চট্টগ্রামে না আসি। আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।’
কারা এ হুমকি দিচ্ছে জানতে চাইলে আকরাম খান বলেন, ‘যারা চায় না আমি চট্টগ্রামের ক্রিকেটের উন্নয়নের জন্য কাজ করি, তারাই এসব হুমকি ধমকি দিচ্ছে। তবে আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই- এসব হুমকিকে আমার গ্রাহ্য করি না। আমি জানাতে চাই, কারো হুমকি ধমকিতে আপোষ করব না। বরং চট্টগ্রামের ক্রীড়া উন্নয়নে কাজ করে যাবো।’
এসময় আকরাম খানের পক্ষে বক্তব্য দিতে গিয়ে বিসিবির আরেক পরিচালক আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘মূল ব্যাপার হলো বিসিবির পরিচালক নির্বাচনের সময় আকরাম খানের নিকটাত্মীয় বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীরের সঙ্গে একটু মানসিক দূরত্ব তৈরি হয়। তিনিও একসময় বিসিবি পরিচালক ছিলেন। নির্বাচনের সময় এ ধরণের সমস্যা একটু আধটু হয়। এরই সুত্র ধরে এসব কথা হচ্ছে।’
তবে অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আকরাম খানের নিকট আত্মীয় ও বিসিবির সাবেক পরিচালক সিরাজুদ্দীন মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘সে আমার বন্ধু ও আত্মীয়। তাকে যদি আমি বা কেউ হুমকি দেই তাহলে তার উচিত সেটি আগে মিডিয়ায় প্রচার না করে থানায় জিডি করা কিংবা মামলা করা।’ এসময় চট্টগ্রামের উন্নয়নে নিজের অবদানের কথা উল্লেখ করে আলমগীর বলেন, ‘আকরামের মুখেই এধরণের অভিযোগ বা কথা মানায়। এসব নিয়ে কথা বলতেও আমার রুচিতে বাধে। কে কোন লেভেলে থেকে কথা বলবে তার সেটি জানা উচিত। এর জন্য জ্ঞানের দরকার।’
এদিকে সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার টুর্নামেন্ট আয়োজনের টাকা নিজের ব্যক্তিগত হিসাবে জমা দেয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ দলের সাবেক এ অধিনায়ক বলেন, ‘বিসিবির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমার হিসাবে টাকা দেওয়া হয়েছে। এখানে কোনো অনিয়ম হয়নি। সম্পূর্ণ নিয়ম মেনেই হয়েছে। কোথায় কোন খাতে কত টাকা খরচ করা হচ্ছে সব হিসেব বিসিবিকে দেওয়া হবে।’ এসময় তার বক্তব্যকে সমর্থন করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও বিসিবির পরিচালক (অডিট কমিটি) আ জ ম নাছির উদ্দিন।
সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রামের ক্রিকেটের উন্নয়ন প্রসঙ্গে আকরাম খান বলেন, ‘জহুর আহমেদ চৌধুরী ষ্টেডিয়াম সংলগ্ন একটি পূর্ণাঙ্গ একাডেমী ভবন (৪৫জনের আবাসন সুবিধা সম্বলিত বিশেষায়িত জিমনেশিয়াম ও সম্মেলন কক্ষ) নির্মানের জন্য মিডিয়া ভবন এর পশ্চিম পার্শ্বের খালি জায়গাটি প্রাথমিকভাবে নির্দিষ্ট করা হয়েছে। মিডিয়া বিল্ডিংয়ের পূর্ব পার্শ্বের জায়গায় অনুশীলনের জন্য সর্বমোট আটটি উইকেট তৈরী করা হবে। তাছাড়া বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্ষের খেলোয়াড় কক্ষ সমূহ, ডায়নিং ও ড্রেসিং রুমগুলোকে প্রয়োজনীয় মেরামত ও আধুনিকায়ন করা হবে। এরপর ১৪ আগস্ট থেকে ৩ মাস মেয়াদী বিভাগীয় ক্রিকেট প্রশিক্ষণ ক্যাম্প শুরু হবে। যা ধারাবাহিকভাবে প্রতি বছর আয়োজনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।’
সাবেক বাংলাদেশ অধিনায়ক আরো বলেন, ‘আমি পরিচালক নির্বাচিত হওয়ার আগে থেকেই চট্টগ্রামের ক্রিকেট নিয়ে বিশেষ গুরুত্ব সহকারে কাজ করার যে অঙ্গিকার করেছি তারই অংশ হিসেবে একটি স্থায়ী একাডেমি ভবন নির্মাণ করতে চাই। আপনাদের সহযোগিতা থাকলে চট্টগ্রাম ক্রিকেটের হারানো গৌরবকে আবার ফিরিয়ে আনা সম্ভব।’






মন্তব্য চালু নেই