মেইন ম্যেনু

আইপিএলে খেলছেন না মোস্তাফিজ!

প্রথমবারের মতো আইপিএলে খেলতে গিয়ে বাজিমাত করেন মোস্তাফিজুর রহমান। নবম আসরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই। কাটার-স্লোয়ার-ইয়র্কারের সংমিশ্রণে দুর্দান্ত বোলিং করে সুনাম কুড়িয়েছেন।

১৬ ম্যাচে ২৪.৭৬ গড়ে নিয়েছিলেন ১৭ উইকেট। আর তাতেই প্রথমবারের মতো আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হায়দরাবাদ। গত মৌসুমে নিজেকে প্রমাণ করায় কাটার মাস্টারকে রেখে দিয়েছে হায়দরাবাদ। তবে নিজেদের শুরুর ম্যাচটাতে তাকে পাচ্ছে না তারা। এমনটা জানা ছিল আগেই। কারণ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন মোস্তাফিজ।

৬ এপ্রিল বাংলাদেশের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। মোস্তাফিজ খেলবেন ওই ম্যাচে। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে উদ্বোধনী ম্যাচ তাই খেলা হচ্ছে না মোস্তাফিজের। হায়দরাবাদের দ্বিতীয় ম্যাচ ৯ এপ্রিল। রাজিব গান্ধী স্টেডিয়ামে গুজরাট লায়ন্সের মুখোমুখি হবে ডেভিড ওয়ার্নারের দল। ওই ম্যাচে হয়তো খেলতে পারতেন মোস্তাফিজ।

তবে ভারতীয় ম্যাগাজিন স্পোর্টস স্টারকে মোস্তাফিজ যেভাবে ইঙ্গিত দিলেন, তাতে আইপিএলের দশম আসরে খেলছেন না কাটার মাস্টার! জানিয়েছেন, জাতীয় দলের হয়ে লম্বা সূচিতে ব্যস্ত সময় পার করতে হবে। তাই আইপিএল না খেলার কথাই ভাবছেন ২১ বছর বয়সী এই পেসার। বলেন, ‘আমাদের (জাতীয় দল) সামনে লম্বা মৌসুম। তাই এখন আমার ফিট থাকা গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া বোর্ডের (বিসিবি) কাছ থেকে অনুমতি নেয়ার অপেক্ষায় আছি। আমার মনে হয় না এবার আমি আইপিএল খেলতে পারব।’

দীর্ঘ ইনজুরি কাটিয়ে জাতীয় দলে ফিরেছেন মোস্তাফিজ। কিন্তু ছন্দ এখনও ফিরে পাননি। কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। মাশরাফি বিন মর্তুজার পরামর্শ বিবেচনায় নেয়ার ইঙ্গিত দিলেন মোস্তাফিজ। বলেন, ‘আমি এখনও আমার ছন্দ ফিরে পাইনি। তাই মাশরাফি ভাই আমাকে পরামর্শ দিয়েছেন, আইপিএল বাদ দেয়া উচিত আমার। আমি তার পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছি। আমাদের অনেক দূর যেতে হবে। তার জন্য আমার ফিট থাকা গুরুত্বপূর্ণ।’

প্রসঙ্গত, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু হওয়ার আগে এক সংবাদ সম্মেলন প্রায় শেষ। শ্রীলঙ্কান মিডিয়া ম্যানেজার দিনেশ জানিয়ে দিলেন এটাই শেষ প্রশ্ন। প্রশ্ন হলো। এরপর হঠাৎ এক ভারতীয় সাংবাদিক মাশরাফিকে প্রশ্ন করে উঠলেন ‘মোস্তাফিজকে কি আরেকটু বিশ্রাম দেয়া যায় না? সামনে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও আইপিএল।’

মাশরাফি তার প্রশ্নটা বুঝতে পারলেন। মোস্তাফিজ যাতে সুস্থ শরীরে আইপিএল খেলতে পারেন সে কারণেই এ প্রশ্ন তাও বুঝলেন। আর বুঝে উঠেই ঠান্ডা মাথায় মাশরাফি বললেন, ‘মোস্তাফিজের ফিটনেসের জন্য ওর যদি বিশ্রাম লাগে, তবে সেটা ফিজিও-ট্রেনাররা আলোচনা করবেন। আমি মনে করি, আইপিএল না খেলে যদি জাতীয় দলের হয়ে সব ম্যাচ খেলে, সেটাই ভালো। কারণ সবার আগে দেশ।’






মন্তব্য চালু নেই