মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় ‘দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আইন সহায়তা প্রদান’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় এ্যাড. সুলতানা কামাল

অসহায় মানুষের বাসযোগ্য বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে ন্যায়বিচার ভিত্তিক সমাজ গড়তে প্রতিষ্ঠা করতে হবে

ন্যায়বিচার ভিত্তিক সমাজ গড়তে রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠা করতে পারলে অসহায় মানুষের বাসযোগ্য বাংলাদেশ বিনির্মাণ সম্ভব হবে। অসহায় দরিদ্র মানুষকে আইনগত সহায়তা দিতে মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে। তখনই আমরা মুক্তিযুুদ্ধের চেতনার সেই বাংলদেশ গড়তে পারবো যখন আমাদের সমাজের সকল পর্যায়ের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। কোন দুর্ঘটনা ঘটলে মিডিয়া বা মানবাধিকারকর্মীরা তার সাথে জড়িত রাজনৈতিক শক্তির বিষয়টি সামনে আনে। তার সাথে জড়িত ক্ষমতাসীন শক্তির বিরুদ্ধে দুর্বল মানুষের পক্ষে লড়াই করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয় না। স্বদেশ এবং আসক একসাথে কাজ করতে পারে কারণ সাধারণ মানুষের তাদের সম্পৃক্ত থাকার কারণে। সকলে একসাথে মোবাবেলা করলে কোন বাধা সামনে আটকাতে পারে না। আমাদের সংবিধান অনেক আমাদের এই দেশের মানুষের জন্য সকল কিছু নিশ্চিত করেছে। কিন্তু আমাদের অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার কারণে আমরা সেখানে কিছুই করতে পারছি না। সরকার দরিদ্র মানুষের জন্য বিনামূলে আইন সহায়তা দেয়ার জন্য তহবিল গঠন করেছে। সেখানে আমাদের আইনজীবী বন্ধুরা যদি ব্যবসায়িক মনোভাবকে পিছনে ফেলে সামান্য হলেও স্বেচ্ছাসেবির ভূমিকা রাখে তবে আমরা দরিদ্র অসহায় মানুষের জন্য আইন সহায়তা কর্মকান্ডকে আরো এগিয়ে নিতে পারবো। আজ যা কিছু সম্ভব হচ্ছে তার মূল হচ্ছে সকলের সম্মিলিত ঐকান্তিক প্রচেষ্টা। পুলিশ মামলা নেয়ার সময় বিভিন্ন সময় গড়িমসি করলে সেখানে আাইন ও সালিশ কেন্দ্র-আসক সাথে থাকলে তারা মামলা নিতে বাধ্য হয়। এর কারণ এই সংগঠনটি মানবাধিকার, এবং মানুষের বিভিন্ন অধিকার রক্ষায় নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচেছ। রবিবার বেলা ১২টায় সাতক্ষীরা অফিসার্স ক্লাবে স্বদেশ এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্র-আসক আয়োজিত সাতক্ষীরা জেলার ‘নিপীড়িত ও অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আইন সহায়তা প্রদান’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তত্ত্ববধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা, মানবাধিকারকর্মী, আইন ও সালিশ কেন্দ্র-আসক’র নির্বাহী পরিচালক এ্যাড. সুলতানা কামাল এসব কথা বলেন। আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ডেপুটি ডিরেক্টর এ্যাড: দীলিপ পালের সঞ্চালনায় এবং স্বদেশ-সাতক্ষীরার নির্বাহী পরিচালক মাধব চন্দ্র দত্তের সভাপতিত্বে সাতক্ষীরা জেলার ‘নিপীড়িত ও অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আইন সহায়তা প্রদান’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু, সাতক্ষীরা কমার্স কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ, মানবাধিকারকর্মী এ্যাড. সুপ্রিয় চক্রবর্তী, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু আহমেদ, আসক’র সিনিয়র ডেপুটি ডিরেক্টর এ্যাড. নীনা গোস্বামী। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন জেলা জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার কে এম ওবায়দুল্লাহ আল মাসুদ, কাউন্সিলার ফরিদা আক্তার বিউটি, এইচআরডিএফ সাতক্ষীরার আহবায়ক মোবাশ্বেরুল হক জ্যোতি, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী এ্যাড. শাহনাজ পারভীন মিলি, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক কল্যাণ ব্যানার্জি, এটিএন বাংলা ও সমকালের এম কামরুজ্জামান, স্বদেশ ও আসক’র প্যানেল আইনজীবী এ্যাড: নাজমুন নাহার ঝুমুর, কলেজ শিক্ষক ও সাংবাদিক আনিসুর রহিম, ক্লাগ কমিটির সদস্য শেখ আবদুর রশিদ, শেখ নাসির আহমেদ, ’৭১ টিভির বরুণ ব্যানার্জি, উন্নয়নকর্মী ওয়ার্ল্ড ভিশনের সাতক্ষীরা এডিপির জেন্ডার প্রকল্পের ম্যানেজার ম্যানেজার ওয়াল্টার দুলাল সরদার, কালিগঞ্জে নিহত গৃহবধূ রুবিনা খাতুনের ভাই জি এম ফয়সার আহমেদ।






মন্তব্য চালু নেই