মেইন ম্যেনু

অসময়ের বৃষ্টিপাতই হাওরবাসীর দুর্ভোগের কারণ

অসময়ের বৃষ্টিপাতকেই হাওরবাসীর দুর্ভোগের অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছেন জলবায়ু বিশেষজ্ঞরা। এছাড়া হাওর অঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগের জন্য আগাম সতর্ক সংকেত না থাকাকেও দায়ী করেছেন তারা।

তাদের মতে, এপ্রিল মাসে তিন দশকের রেকর্ড ভাঙ্গা এ বৃষ্টি শুধু আবহাওয়ার পরিবর্তনই নয় একে জলবায়ু পরিবর্তনও বলা যায়।

এবছরের এপ্রিল মাসে বাংলাদেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৪ হাজার ৫৩ মিলিমিটার। চলতি মাসের ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয় ৮ হাজার ৯০৪ মিলিমিটার যা গত ৩৫ বছরের মধ্যে এপ্রিল মাসে সর্বাধিক বৃষ্টির রেকর্ড।

এবার বৈশাখ শুরুর আগে থেকে বৃষ্টি হচ্ছে প্রায় সারাদেশে। ২ এপ্রিল সিলেটে ৭১ মিলিমিটার, ৩ এপ্রিল সিলেটে ৮১ মিলিমিটার, ৪ এপ্রিল চট্টগ্রামে ৫৮ মিলিমিটার, ৫ এপ্রিল শ্রীমঙ্গলে ১২২ মিলিমিটার, ৭ এপ্রিল সিলেটে ৬২ মিলিমিটার, ৮ এপ্রিল নেত্রকোণায় ২১ মিলিমিটার, ১৫ এপ্রিল দিনাজপুরে ৩৬ মিলিমিটার, ১৮ এপ্রিল তেঁতুলিয়ায় ৩৩ মিলিমিটার, ১৯ এপ্রিল মাদারীপুরে ১১৪ মিলিমিটার, ২০ এপ্রিল শ্রীমঙ্গলে ১৯৪ মিলিমিটার ও ২৩ এপ্রিল রাঙ্গামাটিতে ১১৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

গত শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত একদিনের বৃষ্টিতে পানিবন্দি হয়ে পড়ে পুরো চট্টগ্রাম শহর। বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিলো ৮৫ মিলিমিটার।

এপ্রিলে কালবৈশাখী ঝড় স্বাভাবিক চিত্র হলেও এবার যতক্ষণ বৃষ্টি হচ্ছে ততক্ষণ মুষলধারে ঝরছে, যা সাধারণত বর্ষাকালেই দেখা যায়। ১৯৮১ সালে স্বাভাবিকের চেয়ে ১৬৮ শতাংশ বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছিল।

অসময়ের ভারি বর্ষণের সঙ্গে হাওর অঞ্চলের আকস্মিক বন্যায় ক্ষয়ক্ষতিতে এবার বর্ষার আগেই শুরু হয়েছে জনদুর্ভোগ।






মন্তব্য চালু নেই