মেইন ম্যেনু

অভিনব কায়দায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ

একটি মোটর বাইকে এসে কিশোরীর নাকে রুমাল চেপে ধরে দুই অভিযুক্ত। মুহূর্তে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে বাইকে তুলে নিয়ে যায় তারা।

বাড়ি থেকে এক কিশোরীকে বাইকে করে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার জীবনতলা থানার আঠেরোবাঁকি গ্রামপঞ্চায়েতের সাতঘরিয়া পাড়ায়। আক্রান্ত নবম শ্রেণীর ওই কিশোরীর অভিযোগের ভিত্তিতে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতদের বৃহস্পতিবার আলিপুর আদালতে তোলা হয়।

অভিযোগ, মঙ্গলবার রাতে এলাকায় দীর্ঘক্ষণ লোডশেডিং চলায়, প্রচণ্ড গরমের কারণে বাড়ির ঠিক সামনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল মঠেরদীঘি হাইস্কুলের ওই নবম শ্রেণীর ছাত্রী। সেই সময় হঠাৎই একটি মোটর বাইকে এসে কিশোরীর নাকে রুমাল চেপে ধরে দুই অভিযুক্ত। মুহূর্তে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে বাইকে তুলে নিয়ে গিয়ে একটি ফাঁকা মাঠে অভিযুক্ত অছিমুদ্দিন গায়েন ও আবুবক্কর মোল্লা বারে বারে ধর্ষণ করে।

এরপর ওই কিশোরীকে মাঠেই ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। বুধবার সকালে স্থানীয় মানুষজন মাঠের মাঝে অচৈতন্য অবস্থায় ওই কিশোরীকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে স্থানীয় মঠেরদীঘি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করেন। খবর পেয়ে পরিবারের লোকেরাও আসেন হাসপাতালে।

এরপর ওই কিশোরীর জ্ঞান ফিরলে সে সব কিছু জানায় পরিবারের সদস্যদের কাছে। বুধবার বিকেলেই এ বিষয়ে জীবনতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করে কিশোরীর পরিবার। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার রাতেই অভিযুক্ত অছিমুদ্দিন ও আবুবাক্কর মোল্লাকে গ্রেফতার করে জীবনতলা থানার পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই